Breaking News
Home / জাতীয় / ভেতরে আটকে থাকা কেউ আর জীবিত নেই : ফায়ার সার্ভিস

ভেতরে আটকে থাকা কেউ আর জীবিত নেই : ফায়ার সার্ভিস

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে সেজান জুস কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে ভেতরে আটকে থাকা কেউ আর জীবিত নেই বলে নিশ্চিত করেছেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা। দুর্ঘটনায় অন্তত ৫০ জন আহত হয়েছেন।

এদিকে প্রিয়জনকে জীবিত অথবা মৃত ফিরিয়ে নিতে রাতভর অপেক্ষার পর সকালেও কারখানার বাইরে স্বজনরা অপেক্ষা করছেন। তাদের দাবি, ভেতরে শতাধিক শ্রমিক আটকে আছেন এখনো, যাদের বাঁচার সম্ভাবনা ক্ষীণ।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আগুন নিয়ন্ত্রণে আসেনি। বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টায় উপজেলার কর্ণগোপ এলাকায় অবস্থিত ওই কারখানায় অগ্নিকাণ্ড ঘটে। এতে ডেমরা, কাঞ্চনসহ ফায়ার সার্ভিসের ১৭টি ইউনিট আগুন নেভানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

অপেক্ষারত স্বজনরা জানান, সারারাত অপেক্ষা করেছি এখনো করছি জীবিত না পেলেও যেন লাশ পাই। এখন অপেক্ষা ছাড়া আর কিছুই করার নেই।

এদিকে অনেকেই ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়ে বাঁচার চেষ্টা করে গুরুত্বর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

এদের অনেককেই স্থানীয় হাসপাতালের পাশাপাশি ঢাকা মেডিক্যালসহ ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের নারায়ণগঞ্জ জেলার উপ-পরিচালক আব্দুল্লাহ আল আরেফীন জানান, আগুন প্রায় নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছিল ভোরের দিকে, সকালে আবারো বেড়ে যায় আগুন। আমরা কাজ করছি।

তিনি আরো জানান, ৩ জনের মৃত্যু নিশ্চিত হওয়া গেছে, ভেতরে অনেকেই আটকা ছিলেন যাদের উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

তারা বের হতে পেরেছেন কিনা বা তাদের ভাগ্যে কি ঘটেছে এখনি বলা যাচ্ছে না। হতাহতের সংখ্যা আরো অনেক বাড়তে পারে।

শ্রমিক ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কর্ণগোপ এলাকায় সেজান জুস কারখানায় প্রায় সাত হাজার শ্রমিক কাজ করেন।

সাত তলা ভবনে থাকা কারখানাটির নিচ তলার একটি ফ্লোরে কার্টন থেকে হঠাৎ আগুনের সূত্রপাত হয়। মুহূর্তের মধ্যে আগুন পুরো ভবনে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় কালো ধোয়ায় কারখানাটি অন্ধকার হয়ে যায়।

এক পর্যায়ে শ্রমিকরা ছোটাছুটি করতে শুরু করে। কেউ কেউ ভবনের ছাদে অবস্থান নেন। আবার কেউ কেউ ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়তে শুরু করেন। এ সময় ঘটনাস্থলেই স্বপ্না ও মিনা নামে দুই নারী নিহত হন।

পরে মোরসালিন লাফ দিয়ে আহত হলে তাকে ঢাকা মেডিক্যালে নেয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

প্রত্যক্ষদর্শী নিহত স্বপ্না রানীর মেয়ে শ্রমিক বিশাখা রানী বলেন, অনেক শ্রমিক কারখানার ভেতরে আটকা রয়েছেন। তাদের বের করা যায়নি এখন তারা বেঁচে আছেন কিনা তাও নিশ্চিত না।

About Muktopata

Check Also

রাতের আঁধারে অভুক্ত প্রতিবন্ধী নারীর বাড়িতে খাদ্য নিয়ে হাজির ইউএনও

শুনেছেন আমি আপনাদের ইউএনও। আপনার জন্য খাবার নিয়ে এসেছি। আপনাকে আর কষ্টে থাকতে হবে না। …