Breaking News
Home / জাতীয় / মা আমি টাকা দিচ্ছি, আপনি ঘরে ফিরে যান : অসহায় বৃদ্ধাকে বললেন পুলিশ

মা আমি টাকা দিচ্ছি, আপনি ঘরে ফিরে যান : অসহায় বৃদ্ধাকে বললেন পুলিশ

দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে অনেক পুলিশ বিতর্কের জন্ম দিচ্ছে৷ গুটিকয়েক পুলিশ সদস্যের নীতিভ্রষ্টতার কারণে এমন অভিযোগ পুরো পুলিশ বাহিনীর উপর এসে পড়ে৷ তবে এর পেছনে নাগরিক সমাজের ভূমিকাও কম দায়ী নয়।

নতুন খবর হচ্ছে, কাঁপা কাঁপা শরীর নিয়ে প্রায় চার মাইল হেঁটে কলা বিক্রি করতে যাচ্ছিলেন ৭০ বছরের বৃদ্ধা রেনু আক্তার। তার স্থানীয় গ্রামের বাজারে মানুষ নেই। তাই কলা বিক্রির আশায় শেষ পর্যন্ত যাচ্ছিলেন প্রায় চার মাইল দূরের বারহাট্টার গোপালপুর বাজারে।

রেনু আক্তার নেত্রকোণার বারহাট্টা উপজেলার প্রেমনগর ছালিপুরা গ্রামের বাসিন্দা।

তবে গোপালপুর বাজারে পৌঁছানোর আগেই আটকে দিল পুলিশ। চলমান লকডাউনের কারণে বসানো চেকপোস্টে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মিজানুর রহমান মুখোমুখি বৃদ্ধা রেনু। প্রশ্নের জবাবে ওসিকে জানালেন নিজের অসহায়ত্বের কথা। ঘরে টাকা পয়সা নেই। খাবার নেই। তাই কলা বিক্রি করে খাবার নেবেন তিনি।

রেনু বেগম জানান, ঘর থেকে বের হতে না পারায় কাজকর্মও বন্ধ। তাই খাবারের অভাবে পেট চালাতে পারছেন না তিনি। শেষ পর্যন্ত উপায় না পেয়ে বাড়ির গাছের থেকে কলা নিয়ে বাজারের উদ্দেশে রওনা দিয়েছিলেন।

সংসার জীবনের দারিদ্র্যতার কথা জানিয়ে তিনি বললেন, এক ছেলে এক মেয়ে আছে। কিন্তু তারা নিজেরাই চলতে পারে না, অভুক্ত থাকে। ওদের জীবনই তো দুর্বিষহ। যদি ওরা নিজেরা চলতে পারতো এবং তখন যদি আমার ভরণপোষণ না করতো তবে মনে কষ্ট থাকতো। কিন্তু এখন তা নেই। নিজেরাই চলতে পারছেন না।

এদিকে সবকিছু শুনে অফিসার ইন-চার্জ অসহায় বৃদ্ধা রেনু বেগমকে বললেন, মা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করোনা মধ্যে আপনার বাইরে থাকা বা কলা বিক্রির দরকার নেই। আমি টাকা দিচ্ছি, কি দরকার তা কিনে আপনি ঘরে চলে যান।

অফিসার ইন-চার্জ মো. মিজানুর রহমান’র কথা শুনে তার দেয়া টাকা হাতে পেয়ে বেজায় খুশি হলেন রেনু বেগম।

আরও সংবাদ

লকডাউনে ‘আত্মহত্যা’ করা সেই দিনমজুরের পরিবারকে বিএনপির অর্থ সহায়তা

সময়ের কণ্ঠস্বর, মুন্সিগঞ্জ- চলমান লকডাউনে কাজ হারিয়ে সন্তানদের মুখে খাবার দিতে না পারার কষ্ট নিয়ে আত্মহত্যাকারী দিনমজুর দ্বীন ইসলামের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দিয়েছে বিএনপি।

মঙ্গলবার (৬ জুলাই) মুন্সিগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি আবদুল হাইয়েরর পক্ষে সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে স্থানীয় নেতাকর্মীরা দ্বীন ইসলামের স্ত্রীর হাতে নগদ ৫০ হাজার টাকা তুলে দেন।

বিএনপির কেন্দ্রীয় দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স জানান, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে আত্মহত্যাকারী কর্মহীন দিনমজুর দ্বীন ইসলামের পরিবারকে ৫০ হাজার টাকা অর্থ সহায়তা দেওয়া হয়েছে।

এ সময় তারা নিহত পরিবারকে সমবেদনা জানান এবং ভবিষ্যতে তাদের পাশে থাকার আশ্বাস দেন।

About Muktopata

Check Also

রাতের আঁধারে অভুক্ত প্রতিবন্ধী নারীর বাড়িতে খাদ্য নিয়ে হাজির ইউএনও

শুনেছেন আমি আপনাদের ইউএনও। আপনার জন্য খাবার নিয়ে এসেছি। আপনাকে আর কষ্টে থাকতে হবে না। …