Breaking News
Home / জাতীয় / এবার মামুনুলের শাস্তি দাবি করছে হেফাজত

এবার মামুনুলের শাস্তি দাবি করছে হেফাজত

হেফাজতের অভ্যন্তরীণ কোন্দল এখন চরমে উঠে গেছে। বিশেষ করে মামুনুলের বিতর্কিত নানা রকম বক্তব্য নিয়ে হেফাজতের মধ্যে তুলকালাম চলছে।

হেফাজতের একাধিক নেতা বলছে, মামুনুল ইসলামের শরীয়া বিরোধী কথাবার্তা বলছে। নিজেকে বাঁচাতে তিনি ইসলামের অপব্যাখ্যা দিচ্ছে, এটা মেনে নেয়া যায় না।

আর এর প্রেক্ষিতে হেফাজতের একাধিক শীর্ষ নেতা মামুনুলের শাস্তি দাবি করেছেন দলের আমীর জুনায়েদ বাবুনগরীর কাছে।

জুনায়েদ বাবুনগরী এখন কি করবেন সেটাই দেখার বিষয়।  একাধিক সূত্র বলছে যে, বিভিন্ন কারণে মামুনুলের ওপর ক্ষুব্ধ হয়েছে হেফাজতের আলেম এবং নেতারা।

প্রথমত যখন ২৬ এবং ২৭ মার্চে এতোবড় ঘটনা ঘটে গেল, অধিকাংশ মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে, বেশ কয়েকজন গ্রেফতার হয়েছে, মারা গেছে অন্তত ১২ জন (হেফাজতে হিসাব মতে)। সেই পরিস্থিতিতে মামুনুল কিভাবে প্রমোদবিহারে গেলেন।

দ্বিতীয়ত মামুনুল সেখানে কেন মিথ্যা কথা বললেন। হেফাজতের একজন আলেম বলেছেন, মিথ্যা বলা ইসলামের দৃষ্টিতে সম্পূর্ণ হারাম। এটার মধ্যে কোনো যদি, কিন্তু, ইত্যাদি নেই।

মামুনুল যদি দ্বিতীয় বিয়ে করেই থাকেন তাহলে সেটার ব্যাপারে তিনি অটল থাকতেন। কিন্তু পরবর্তীতে তিনি যখন তার প্রথম স্ত্রীর কাছে ফোন করে এ বিয়ের কথা অস্বীকার করেছেন, তখন সুস্পষ্ট ভাবে তিনি ইসলামবিরোধী কাজ করেছেন বলে মনে করেন হেফাজতের শীর্ষস্থানীয় একাধিক নেতা।

তৃতীয়ত প্রথম স্ত্রীর অনুমতি না নিয়েই দ্বিতীয় বিয়ে করেছেন। এটিও ইসলামের শরীয়া সম্মত নয় বলে মনে করছেন হেফাজতের নেতারা।  তবে সর্বশেষ গতকাল ফেসবুকে লাইভে এসে মামুনুল হক যে সমস্ত কথাবার্তা বলেছেন তাতে হেফাজত এবং আলেম সমাজ সম্পর্কে মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি

এবং নেতিবাচক ধারণা সৃষ্টি হবে বলে হেফাজতের নেতারা মনে করছেন। হেফাজতের একাধিক নেতা বলেছেন যে, মামুনুল হক ইসলামের ভুল ব্যাখ্যা দিয়েছেন। স্ত্রীকে খুশি করার জন্য সীমিত আকারে সত্য গোপন করা যায়, এ ধরনের বক্তব্য কখনই ইসলাম সমর্থন করে না বলে তাঁরা মনে করছেন।

আর এই সমস্ত প্রেক্ষিতে মামুনুল হকের শাস্তি দাবি করা হচ্ছে হেফাজতের পক্ষ থেকে।  তবে হেফাজতের একাধিক সূত্র বলছে, মামুনুল হক যেহেতু একটি রাজনৈতিক সংগঠনের নেতা এবং তার কর্মীবাহিনী আছে এটা বাবুনগরীর কাছে একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

আর এ কারণেই মামুনুলের ব্যাপারে এখন পর্যন্ত বাবুনগরী নমনীয়। তাছাড়া হেফাজতের অন্য একটি অংশ মনে করছে যে এখন যদি মামুনুলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না হয় তাহলে প্রকারান্তে হেফাজতই দুর্বল হয়ে যাবে এবং হেফাজত সম্পর্কে মানুষের মধ্যে একটা বিরূপ ধারণা তৈরি হবে।

একাধিক সূত্র বলছে যে, মামুনুল হকের সর্মথকরা মনে করছে যে, এখন মামুনুল হক যাই বলুন না কেন সেটাকে হেফাজতের পক্ষ থেকে সমর্থন করতে হবে এবং তার পাশে দাঁড়াতে হবে। আর তা না হলে হেফাজতই বিতর্কের মুখে পড়বে এবং হেফাজতের কর্মকাণ্ড নিয়েই জনমনে নানা রকম প্রশ্ন উঠবে।

আর এ কারণেই জুনায়েদ বাবুনগরী মামুনুলের শাস্তি দাবি করা হলেও তার বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারছে না। তবে সাম্প্রতিক সময়ের ঘটনায় হেফাজত টালমাটাল অবস্থায় পৌঁছে গেছে এবং এই পরিস্থিতিতে শেষ পর্যন্ত হেফাজতের ভাঙন যে অনিবার্য সেটি নিশ্চিত বলেই মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

-বাংলা ইনসাইডদ

About Muktopata

Check Also

রাতের আঁধারে অভুক্ত প্রতিবন্ধী নারীর বাড়িতে খাদ্য নিয়ে হাজির ইউএনও

শুনেছেন আমি আপনাদের ইউএনও। আপনার জন্য খাবার নিয়ে এসেছি। আপনাকে আর কষ্টে থাকতে হবে না। …